ফিলোসফিক্যাল টুইটস ৪: জ্ঞানের অবিনশ্বরতা

জ্ঞান হলো এমন ‘জিনিস’ যার কোনো ধ্বংস নাই। এটি অবশ্যম্ভাবী (necessary)। যখন আপনি কোনো বিষয়ে না জানার দাবী করেন, তখন আসলে সংশ্লিষ্ট বিষয়ের কোনো দিক সম্পর্কে না জানার কথা বলেন। কোনো কিছু সম্পর্কে শুন্য-জ্ঞান বা পুরোপুরি অজ্ঞানতা নিয়ে সে বিষয়ে কোনো প্রশ্ন করা বা ‘বিষয়’টি না জানার দাবী করা স্ববিরোধী ও অসম্ভব ব্যাপার। প্রতিটা প্রশ্নের মধ্যেই কিছু না কিছু উত্তর নিহিত থাকে। এর বিপরীতে, প্রতিটা উত্তরই কোনো না কোনো প্রশ্নের জন্ম দ্যায়।

আপনি যখন বলেন, “…. জানি না।” তখন আপনি অন্তত এতটুকু জানেন যে, আপনি জানেন না। এই দৃষ্টিতে liar paradox এর মতো জ্ঞানকেও প্যারাডক্সিক্যাল অর্থে অবশ্যম্ভাবী হিসাবে মনে হয়।

একটি মন্তব্য লিখুন

প্লিজ, আপনার মন্তব্য লিখুন!
প্লিজ, এখানে আপনার নাম লিখুন

মোহাম্মদ মোজাম্মেল হকhttps://mozammelhq.com
নিজেকে একজন জীবনবাদী সমাজকর্মী হিসেবে পরিচয় দিতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিলসফি পড়িয়ে জীবিকা নির্বাহ করি। গ্রামের বাড়ি ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম। থাকি চবি ক্যাম্পাসে। নিশিদিন এক অনাবিল ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখি। তাই, স্বপ্নের ফেরি করে বেড়াই।বর্তমানে বেঁচে থাকা এক ভবিষ্যতের নাগরিক।

সম্প্রতি জনপ্রিয়

আরো পড়ুন

ইন্ডিভিজুয়ালিজম ও ফাউন্ডেশনালিজমের মধ্যে সম্পর্ক ও পার্থক্য

অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের একজন ছাত্র প্রশ্ন করেছেন: ‍“স্যার, আমি ইন্ডিভিজুয়ালিজম আর ফাউন্ডেশনালিজমের মধ্যে কনফিউজড হয়ে পড়ছি, খুব ভালো হয়, যদি দুয়েক লাইনে কিছু লিখে...

ইন্ডিভিজুয়ালিজম আর ফাউন্ডেশনালিজমের মধ্যে সম্পর্ক ও পার্থক্য

একটু আগে অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের একজন ছাত্র প্রশ্ন করেছেন: ‍“স্যার, আমি ইন্ডিভিজুয়ালিজম আর ফাউন্ডেশনালিজমের মধ্যে কনফিউজড হয়ে পড়ছি, খুব ভালো হয়, যদি দুয়েক লাইনে...

যুক্তি বলে বুদ্ধিবাদই সঠিক

law of identity বা সত্তাগত স্বাতন্ত্র্যতার সূত্রানুযায়ী অন্য কোনো ভেরিয়েবল বা শর্তের পরিবর্তন ব্যতিরেকে কোনো কিছু একইসাথে একাধিক সত্তা বা অস্তিত্বসম্পন্ন হবে না। তারমানে,...